শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:১৮ পূর্বাহ্ন

নবজাতকের মৃত্যু :সেই মা রিক্তা গ্রেফতার

রিপোর্টার : / ১৮ জন পড়েছেন
শনিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২০, ১১:৪০ অপরাহ্ন
নবজাতকের মৃত্যু :সেই মা রিক্তা গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে নবজাতক কন্যা শিশুকে হত্যার অভিযোগে মা রিক্তা বেগমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (২১ নভেম্বর) সকালে তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। গত শুক্রবার রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় শিশুটি। এর আগে দুপুর ১২টার দিকে বন্দর উপজেলার ফরাজীকান্দা খালপাড় এলাকার পুকুরপাড় থেকে নবজাতক শিশুটিকে উদ্ধার করেন পথচারী এক যুবক।

 

এ ঘটনায় শিশুটির পিতা লাল মিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ বলছে, শিশুর জন্মের পরই তার মা তাকে জঙ্গলে ফেলে আসেন। তবে কী কারণে তিনি এ কাজ করেছেন তা জানতে রিমান্ড আবেদন করা হবে বলে জানান বন্দর থানার ওসি ফখরুদ্দীন ভূইয়া।

 

নবজাতকের পিতা লাল মিয়া একটি আটার মিলে স্বল্প বেতনে কাজ করেন। গ্রেফতার মা রিক্তা বেগম একজন গার্মেন্টস শ্রমিক। তারা বন্দর উপজেলার ফরাজিকান্দা এলাকার আমানউল্ল্যাহ মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া। তাদের সংসারে ৬ বছর বয়সী এক পুত্র সন্তানও রয়েছে।

 

নবজাতক উদ্ধারকারী বন্দরের ফরাজীকান্দা এলাকার যুবক সজিব জানান, তিনি শুক্রবার দুপুরে বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় ফরাজীকান্দা খালের পাড় থেকে শিশুর কান্নার আওয়াজ শুনতে পান। সামনে গিয়ে কাপড় মোড়ানো অবস্থায় নবজাতককে দেখতে পান। এরপর নবজাতক শিশুটিকে উদ্ধার করে বন্দর থানায় নিয়ে আসেন।

 

এ বিষয়ে বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফখরুদ্দীন ভূইয়া জানান, নবজাতককে উদ্ধারের পর স্থানীয় একটি ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়। প্রথমে আমরা ভেবেছিলাম এটা কোন অনৈতিক সম্পর্কের জের ধরে নবজাতকটির জন্ম হয়েছে।

 

পরে ফরাজীকান্দায় অভিযান চালিয়ে তার বাবা মাকে খুঁজে বের করে পুলিশ। এরপর নবজাতককে বাবা মার কাছে দেওয়া হয়। এর মধ্যে নবজাতকটি খুব অসুস্থ হয়ে পড়লে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। শুক্রবার সন্ধ্যায় সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় নবজাতক শিশুটি মারা যায়।

 

ওসি বলেন, এ ঘটনায় শিশুটির পিতা বাদী হয়ে মায়ের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই রাতেই মাকে গ্রেফতার করা হয়। ওই নারী কেন এমন কাজ করেছেন তা জানতে তদন্ত চলছে। আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হবে


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Translate »
Translate »