সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:৩৭ পূর্বাহ্ন

নিহাদ ও জিসান হত্যার বিচার দাবীতে মানবন্ধন

শহর প্রতিনিধি : / ১৭৬ জন পড়েছেন
বৃহস্পতিবার, ২০ আগস্ট, ২০২০, ৫:২১ অপরাহ্ন

নারায়ণগঞ্জে কিশোর নিহাদ এবং জিসান হত্যার দাবিতে মানববন্ধন করে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট। মানববন্ধনে অশ্রু মিশ্রিত বক্তব্যে ছেলের হত্যা দাবি জানায় নিহত নিহাদের বাবা কাজিম উদ্দিন। বৃহস্পতিবার (২০ আগষ্ঠ) বেলা ১১টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে এই মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় জেলা সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি সুলতানা আক্তারের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা বাসদের (বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল) সমন্বয়ক কমরেড নিখিল দাস, সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক দীমান সাহা জুয়েল, বন্দর মানবাধিকার কমিশনের সাধারন সম্পাদক নাজমা আক্তার, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের অর্থ সম্পাদক মুন্নি সরকার, নিহাদের আত্বীয়স্বজন এবং বন্দর এলাকাবাসী। এসময় নিহাদের বাবা কাজিম উদ্দিন বলেন, আল্লাহ আমার ছেলে না নিয়ে আমাকে নিয়ে যেতেন! আমি এখন কাকে নিয়ে বাচঁবো? ওই খুনিরা আমার সন্তানকে হত্যা করে শান্ত হয়নি, লাশ গুম করার জন্য শীতলক্ষায় ফেলে দিয়েছে। আমি আমার ছেলে হত্যার বিচার চাই। আমার মতো কোনও বাবাকে যেন তার সন্তানের লাশ বহন করতে না হয়। আমার সাথে শত্রুতা ছিলো নিহাদের সাথে তো ছিলো না! তাহলে কেন আমার বদলে কেন আমার ছেলেকে মারা হলো? নিহাদ শুধু আমার না, আমার আপনার সবার সন্তান। আমি সাংবাদিক এবং সম্পাদকদের অনুরোধ করছি আপনারা বিচার করেন। আর কোনো মাকে যেন ছেলে কই, ছেলে কই বলে কান্না না করতে হয়।
<ঢ়>জেলা বাসদের সমন্নয়ক নিখিল দাশ বলেন, কিশোর গ্যাংকে সমাজে টিকিয়ে রাখার পিছনে অনেকের হাত আছে। কিশোরদের দিয়ে নানা অপরাধমূলক কাজ করানো হয়। সড়কে বের হলেই দেখা যায়, রং করা বড় চুল, হাফ প্যান্ট পড়ে তারা যে ঝুকিপূর্নভাবে মোটর সাইকেল চালায় এতে যে কোন সময়ে বড় দূর্ঘটনা হবার আশঙ্কা থাকে। কেউ কিছু বলতে গেলে বেপরোয়া ব্যবহার করে। প্রশাসনের নজর কিশোর গ্যাংয়ের উপর কেন পড়ে না? এলাকার কিছু বড় ভাইদের নামে এরা সন্ত্রাসী হয়ে উঠছে। এই বেপরোয়া ভাব দিন দিন আরো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে। সভায় সেমিনারে প্রায়ই দেখা যায়, কিশোরদের নিয়ে সভা সেমিনারে করছে। এই উঠতি বয়সি কিশোরদের অসৎ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হচ্ছে। শীতালক্ষা নদী নানা ইতিহাস বহন করে, কিন্তু এখন এই নদীতে একের পর এক লাশ ভেসে উঠছে। খুনিরা বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এমনটা হতে দেয়া যায় না।


এ বিভাগের আরও খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Translate »
Translate »