চাকুরী প্রদানের নামে ৩ কোটি টাকা আত্মসাৎ: চেয়ারম্যান ও এমডিসহ গ্রেফতার ৩

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:

অনলাইনে লোভনীয় বিজ্ঞাপন দিয়ে চাকুরী প্রদানের নামে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে বিপুল অংকের অর্থ হাতিয়ে নেওয়া দুইটি ভূয়া প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ও এমডিসহ তিন প্রতারককে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব।

 

তাদের কাছ থেকে জব্দ করা হয়েছে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ভিজিটিং কার্ড, চাকুরী প্রত্যাশীদের বিপুল পরিমান ভর্তি ফরম, সীল, অফিস শর্তাবলীর অঙ্গীকারনামা, সিকিউরিটি ইউনিফর্ম, আয়-ব্যায়ের রেজিষ্টার খাতা, এটিএম কার্ড ও অর্থ লেনদেনের রশিদ। একই সাথে চাকুরী প্রত্যাশী আট ভুক্তভোগীকেও ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে র‍্যাব।

 

মঙ্গলবার রাতে শহরের কলেজরোড ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানার সাহেবপাড়া এলাকায় পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

 

বুধবার দুপুরে সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জে র‍্যাব-১১ সদর দপ্তরে অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল তানভীর মাহমুদ পাশা সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

 

তিনি আরো জানান, শহরের কলেজ রোডে এন.আর.এস ফোর্স সিকিউরিটি সার্ভিস লিঃ এবং সিদ্ধিরগঞ্জে এম.আর.এম ফোর্সেস সিকিউরিটি সার্ভিস লিঃ নামের দুইটি ভূয়া প্রতিষ্ঠানের অফিস খুলে বিভিন্নজনের সাথে প্রতারণা করে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে আসছে বলে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাতে র‍্যাব অভিযান চালায়।

 

এসময় এন.আর.এস ফোর্স সিকিউরিটি সার্ভিস লিঃ এর চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম এবং এমডি সাইফুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয় এম.আর.এম ফোর্সেস সিকিউরিটি সার্ভিস লিঃ নামে অপর একটি ভূয়া  প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান রায়হানকে।

আরও পড়ুন: বিতর্কিত কেউ মনোনয়ন পেলে নাম সংশোধন হবে: কাদের

 

গ্রেফতারকৃতরা জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, ১০ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত উচ্চ বেতনে চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে তারা বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে চাকুরী প্রত্যাশীদের প্রলুব্ধ করে। পরে আগ্রহীরা যোগাযোগ করলে বিভিন্ন বেনামী কোম্পানীতে সিকিউরিটি গার্ড, প্রজেক্ট হেলপার, মার্কেটিং ম্যানেজার, ইলেকট্রিশিয়ান, ওয়েল্ডার, রডমিস্ত্রি ও রাজমিস্ত্রির চাকুরী প্রদানের প্রলোভন দেখিয়ে রেজিস্ট্রেশন ও মেডিকেল ফি'র কথা বলে জন প্রতি ৭ থেকে ১৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়।

 

গত ৬ মাসে এই দুই ভূয়া প্রতিষ্ঠান দেশের বিভিন্ন এলাকার এক হাজার দুই শতাধিক মানুষের কাছ থেকে প্রায় তিন কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকারও করেছে।

 

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে র‍্যাব জানিয়েছে।

 

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন