ডেঙ্গু নিধনে নাসিকের অভিযান

সারাদেশে করোনার পাশাপাশি ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এ নিয়ে বিশেষজ্ঞরাও উদ্বিগ্ন। করোনার উর্ধ্বমুখী সংক্রমণের মধ্যেই ভয়াবহ শঙ্কার বার্তা দিচ্ছে ডেঙ্গু। সারাদেশের মত নারায়ণগঞ্জেও ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হচ্ছে। এডিস মশার লার্ভা থাকায় এবং ড্রেনে আবর্জনা ফেলে ভরাট করার কারণে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে।


সোমবার (১৯ জুলাই) চারটি প্রতিষ্ঠানে সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাহাঙ্গীর আলমের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করে জরিমানা করা হয়।

 

নাসিক কাউন্সিলর অসিত বরণ বিশ্বাস জানান, ইতিমধ্যে ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকা পরিভ্রমণের মাধ্যমে বিভিন্ন ভবনের ছাদে ও আঙ্গিনায় মশকের প্রজনন ক্ষেত্র চিহ্নিত করা হয়েছে। চিহ্নিত জায়গায় প্রতিদিন সিটি কর্পোরেশনের মশক নিধন কর্মীরা ওষুধে ছেটাচ্ছেন।

আরও পড়ুন: কোরবানীর গরু কিনতে এসে যুবক নিহত


কাউন্সিলর অসিত বলেন, মহামারী করোনা ও ডেঙ্গুর প্রকোপ বৃদ্ধির অন্যতম কারণ জনসচেতনতার অভাব। স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণে একদিকে যেমন করোনা বিস্তার লাভ করেছে, তেমনিভাবে বাড়ির আঙ্গিনায় ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশাও বিস্তার লাভ করছে।

তার নেতৃত্বে বি দাস রোড, বংশাল, নিমতলা এলাকায় মশার ওষুধ ছেটানো হয় এবং মাইকিং এর মাধ্যমে জনগণকে সচেতন করা হয়।


অসিত বরণ বিশ্বাস বলেন, ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশা স্বচ্ছ পানিতে জন্মায়। কাজেই আপনার বাড়ির আঙ্গিনা ও আশপাশে জমে থাকা পানি দ্রুত অপসারণ করুন, পাশাপাশি মহামারী করোনার বৃদ্ধি রুখতে সঠিক নিয়মে মাস্ক পরিধান করুন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।

 

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন