হয় যুদ্ধে যাও, নইলে জেলখানায়!

যুদ্ধে যাওয়ার ব্যাপারে আগ্রহ না থাকায় ইসরাইলি যুবকদেরকে হুমকি দিয়েছে দেশটির সরকার।  যুদ্ধে না যেতে চাইলে তাদের জেলখানায় যেতে হবে হুশিয়ার করেছে ইহুদিবাদী দেশটির সরকার।

সারাহ নামে এক ইসরাইলি তরুণী ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে অস্বীকৃতি জানানোর পর তাকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। খবর আরব নিউজের।

ইসরাইলে প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষদের বধ্যতামূলকভাবে ৩ বছর এবং নারীদের দুই বছর সেনাবাহিনীতে কাজ করতে হয়।

দেশটির কাফর ইয়োনা শহর থেকে বাসে করে তেলআবিবের উপকণ্ঠ তেলহাশোমার এলাকার একটি সেনা ক্যাম্পে যান ১৮ বছরে পা দেওয়া ইসরাইলি তরুণী সারাহ।

আরো পড়ুন: বিদেশি হস্তক্ষেপ মেনে নেবেন না তিউনিসিয়ার প্রেসিডেন্ট সাঈদ

সেখানকার সেনা কর্মকর্তারা আশা করছিলেন সারাহ আগামী দুই বছরের জন্য সেনাবাহিনীতে কাজ করবেন।

প্রথম চার মাস তাকে এখানে রাইফেল চালনা শেখানো হবে এবং এরপর তাকে দেশটির সীমান্তে কাজ করা সেনাবাহিনীর প্রথম সারিতে নিযুক্ত করা হবে।

এ কথা জানতে পেরে তিনি সেনাবাহিনীতে কাজ করবেন না বলে জানিয়ে দেন। কারণ, এক্ষেত্রে তাকে সীমান্তে নিরাপরাধ ফিলিস্তিনিদের গুলি করে হত্যা করতে হতে পারে।

এছাড়া, জোর করে ফিলিস্তিনিদের বাড়িঘর দখল করে সেখানে ইহুদি বসতি গড়ারও বিরোধী সারাহ।

তিনি সেখানকার প্রধান কর্মকর্তাকে বলেন, ইসরাইলের বর্ণবাদী আচরণ, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড এবং দখলদার নীতি তার পছন্দ না। এ জন্য তিনি ফিলিস্তিনবিরোধী কোনো কর্মকাণ্ডে নিজেকে জড়াবে না।

এ কথা শুনে তাকে সঙ্গে সঙ্গে আটক করে জেলে পাঠানো হয়।

তাকে প্রাথমিকভাবে ১০ দিনের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এরপরও যদি তিনি তার সিদ্ধান্ত থেকে সরে না আসেন, তাহলে তাকে আবারও কারাদণ্ড দেওয়া হবে বলে দেশটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন